thereport24.com
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫

শতভাগের মধ্যে ১৭০ ভাগ!

২০১৬ জুন ০৩ ১৬:২৮:৫১
শতভাগের মধ্যে ১৭০ ভাগ!

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : নার্স নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ নিয়ে দুই পক্ষের বক্তব্যে শতাভাগ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৭০ ভাগ পরীক্ষার্থীর হিসেব পাওয়া গেছে। পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলনরত নার্সরা জানিয়েছেন ৯০ শতাংশ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা বর্জন করেছে আর স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন ৮০ ভাগ পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন। এর ফলে দুই পক্ষ ১৭০ ভাগ নার্সের হিসেব দিয়েছেন।

নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করে জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে নিয়োগের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে আসছেন নার্সরা। এর মধ্যেই পিএসসির অধীনে শুক্রবার নার্স নিয়োগের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষা বর্জন করে ঢাকা নার্সেস কলেজের সামনে অবস্থান নেন আন্দোলনরত নার্সরা।

বাংলাদেশ বেসিক গ্রাজুয়েট নার্সেস সোসাইটি (বিবিজিএনএস) ও বাংলাদেশ ডিপ্লোমা বেকার নার্সেস অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিবিএনএ) এর ব্যানারে শুক্রবার সকাল থেকে আন্দোলনরত নার্সরা অবস্থান নেন।

বিডিবিএনএ এর সভাপতি রীনা আক্তার দ্য রিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ‘স্বাস্থ্যমন্ত্রী আমাদের সাথে বার বার প্রতারণা করেছেন। কয়েকবার আমাদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলেও শেষ পর্যন্ত পরীক্ষার মাধ্যমেই নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু নার্সরা এ পরীক্ষা বর্জন করে সারাদেশের বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান কর্মসূচী পালন করছে।’

প্রায় ৯০ ভাগ নার্স শুক্রবারের এ পরীক্ষা বর্জন করেছেন বলে জানান তিনি।

এদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ বিষয়ে শুক্রবার দুপুরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘৮০ ভাগ পরীক্ষার্থীই পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন। সুষ্ঠুভাবে নার্স নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।’

রীনা আক্তার জানান, ১ মে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দাবি আদায়ের অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছিল। কিন্তু ৩০ মে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ৩১ মে ও ০১ জুন এ দু’দিনের মধ্যে দাবি মেনে নেওয়াসহ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করিয়ে দেওয়ার কথা বলেও কথা রাখেননি।

তিনি বলেন, ‘মন্ত্রী বার বার আশ্বাস দিয়ে দাবি না মেনে শুক্রবার পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা বলেছেন। কিন্তু আমরা এ পরীক্ষার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি।’

যতদিন দাবি আদায় না হবে, ততদিন আন্দোলন চলমান থাকবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পরবর্তীতে কি কর্মসূচী দেওয়া হবে সেই ব্যাপারে এখনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি, পরে জানানো হবে।’

২ তারিখ বুধবার রাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাসার সামনে আন্দোলনরত নার্সরা অবস্থান নিলে পুলিশ লঠিচার্জ করে। এতে প্রায় অর্ধশতাধিক নার্স আহত হন। এদিন রাতেই ১৪০০ জনকে আসামি করেই মামলা করা হয়।

এ অবস্থার মধ্যে গত বৃহস্পতিবার রাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সবাইকে শুক্রবারের পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘সরকারি চাকরিবিধি অনুযায়ী পাবলিক সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমেই প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হয়। কোনোভাবেই এর ব্যত্যয় ঘটানোর সুযোগ নেই। অন্য কোনোভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত হলে তাদের চাকরিতে স্থায়ীকরণে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়। দেশের নার্স সঙ্কট এবং বেকার নার্সদের অবস্থা বিবেচনা করে তিন হাজার ৬০০ নার্স নিয়োগ ত্বরান্বিত করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে পাবলিক সার্ভিস কমিশন ১০০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষার শর্ত শিথিল করে শুধুমাত্র বহুনির্বাচনী প্রশ্ন ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে সম্মতি প্রদান করেছে।’

(দ্য রিপোর্ট/পিএম/এসবি/জুন ০৩, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert
Symphony

শিক্ষা এর সর্বশেষ খবর

শিক্ষা - এর সব খবর



রে