thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

‘আ’লীগের রক্তাক্ত সন্ত্রাসে একতরফা নির্বাচন চলছে’

২০১৬ জুন ০৪ ১৩:০৯:০০
‘আ’লীগের রক্তাক্ত সন্ত্রাসে একতরফা নির্বাচন চলছে’

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের রক্তাক্ত সন্ত্রাসে একতরফা নির্বাচন চলছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের শেষ ধাপেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে নৌকা প্রতীকে সিল মারছে।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শনিবার (৪ জুন) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ৬ষ্ঠ ধাপের ইউপি নির্বাচনের সার্বিক চিত্র তুলে ধরে তিনি এসব কথা বলেন।

রহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তার বেষ্টনীতে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দিয়ে ভোট কেন্দ্র দখল করেছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। অভিনব কায়দায় বিএনপির প্রার্থী, নির্বাচনী এজেন্ট ও সমর্থকদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে।’

ইসির সমালোচনায় তিনি বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশনারের অধীনে সব নির্বাচনে কারবালার মাতম উঠেছে। অসংখ্য মানুষের রক্তাক্ত লাশ দেখেও তারা বিচলিত হননি। বরং বারবার স্বাভাবিক ঘটনা বলে সহিংসতাকে সশস্ত্র আওয়ামী ক্যাডারদের পক্ষে উস্কে দিয়েছে।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের হৃতগরিমা পুনরুদ্ধার করতে হলে বর্তমান কমিশনকে বিদায় করার কোন বিকল্প নেই। কারণ এই নির্বাচন কমিশনই গণতন্ত্রে নির্বাচন নামক প্রধান শর্তটিকে হত্যা করে কফিনে ঢুকিয়ে শেষ পেরেকটি মেরে দিয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলে স্বাধীন সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান বলে কিছু নেই। সবই আওয়ামী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। সব প্রতিষ্ঠানের কর্তারাই শাসকদলের সুরে কথা বলে।

নির্বাচনী সহিংসতায় হত্যাকাণ্ডের সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে যত হত্যাকাণ্ড হয়েছে সবই হয়েছে সরকারের অঙ্গুলির নির্দেশে।

তিনি বলেন, এই নির্বাচনে দেখেছি শাসকদলের ক্যাডারদের সন্ত্রাস, পুলিশী সন্ত্রাস, র‌্যাবের সন্ত্রাস, সবমিলিয়ে অভূতপূর্ব নির্বাচনী সন্ত্রাস। আর নির্বাচন কমিশন সন্ত্রাস, ভোট ডাকাতি, রিগিং একাকার করে দিয়েছে।

রিজভী বলেন, ‘একদলীয় রাষ্ট্রব্যবস্থা কায়েমের উদ্দেশ্য নিয়েই দলীয় প্রতীকে স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেয়। স্থানীয় সরকারে তাদের একতরফা নিজেদের লোক দরকার, তা না হলে একদলীয় ব্যবস্থা কায়েম করা যায় না।

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি সমর্থক ভোটারদের প্রহসনের বিচারের মাধ্যমে হেনস্থাও বিপর্যস্ত করার জন্য একচেটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান দরকার শাসকদলের। আর সেজন্যই ভোটারবিহীন সরকার কর্তৃক স্থানীয় সরকার নির্বাচনে এতো অনাচার, বর্বরতা, জবরদখল, পৈশাচিকতা, রক্তপাত, প্রাণহানি, ডাকাতি, চুরিসহ এক বীভৎস অরাজকতা সৃষ্টি করা হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হারুন অর রশিদ, গণশিক্ষা বিষয়ক সস্পাদক অ্যাডভোকেট সানা উল্লাহ মিয়া প্রমুখ।

(দ্য রিপোর্ট/এমএইচ/এমকে/এনআই/জুন ০৪, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert
Symphony

রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর

রাজনীতি - এর সব খবর



রে